ঢাকা মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২

Popular bangla online news portal

শর্ত সাপেক্ষে বেনজীর আহমেদের ভিসা পাওয়া অবমাননাকর : ফখরুল


নিউজ ডেস্ক
১১:৫৪ - শনিবার, আগস্ট ২৭, ২০২২
শর্ত সাপেক্ষে বেনজীর আহমেদের ভিসা পাওয়া অবমাননাকর : ফখরুল

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদকে যুক্তরাষ্ট্র শর্ত সাপেক্ষে ভিসা প্রদান করেছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, জাতিসংঘে পুলিশ প্রধানদের সম্মেলনে শর্ত সাপেক্ষে বেনজীর আহমদকে ভিসা প্রদান বাংলাদেশের জন্য অবমাননাকর। 

শনিবার (২৭ আগস্ট) দুপুরে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। 

মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশে গুম, খুন, বিনাবিচারের হত্যার ভয়ংকর কর্মকাণ্ডের জন্য র‍্যাব এবং র‍্যাবের ৭  কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। এখন জাতিসংঘের পুলিশ প্রধানদের সম্মেলনে বাংলাদেশের ডেলিগেশনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে পুলিশের মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদের নাম রয়েছে। এই সম্মেলনে যোগ দেওয়ার জন্য পুলিশের মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদকে যুক্তরাষ্ট্র শর্ত সাপেক্ষে ভিসা প্রদান করায়, জনগণের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বাংলাদেশ সরকার জাতিসংঘকে যে ডেলিগেশনের তালিকা প্রদান করেছে, সেখানে ইচ্ছাকৃতভাবে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করা হয়েছে। অবৈধ আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতাকে নিরঙ্কুশ করার লক্ষ্যে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গুম, খুন, বিচারবর্হিভূত হত্যাকাণ্ডের মতো ভয়ংকর মানবাধিকার লঙ্ঘনের নির্দেশদাতাদের একজন বেনজীর আহমেদকে এ তালিকাভুক্ত করে মানবাধিকার লঙ্ঘনকারীদের বৈধতা প্রদান করার চেষ্টা করেছে।  

তিনি বলেন, বেনজীর আহমেদের অবস্থান সীমিত থাকবে জাতিসংঘের প্রাঙ্গণে। আমরা মনে করি, এ ধরনের শর্ত সাপেক্ষে ভিসা প্রদান বাংলাদেশের জন্য অবমাননাকর। সরকারের এ ধরনের দায়-দায়িত্বহীন আচরণের কারণে আন্তর্জাতিক সম্পর্ককে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে।

ফখরুল বলেন, দীর্ঘ দিন বিএনপিসহ দেশের প্রায় সব গণতান্ত্রিক দল এ সরকারের হিংস্র আচরণ নিয়ে কথা বলে আসছি। ইতিমধ্যে আমাদের অসংখ্য নেতাকর্মীকে এ সরকার গুম করেছে, ক্রসফায়ারে হত্যা করেছে, বিনা বিচারে গ্রেপ্তার করে নির্যাতন করেছে। দেশে কোনো গণতান্ত্রিক পরিবেশ নেই, মিটিং মিছিল করার অধিকার নেই, বিনা অনুমতিতে এমনকি কোনো সমাবেশ পর্যন্ত করতে দেয় না। 

মির্জা ফখরুল বলেন, এ ধরনের একটি পরিস্থিতির কারণে স্বাভাবিকভাবেই দেশের মানুষ আশা করেছিল, এ সরকারের বোধোদয় হতে পারে। কিন্তু অবাক বিস্ময় ও ক্ষোভের সঙ্গে লক্ষ্য করলাম, জাতিসংঘের প্রতিনিধি হিসেবে আন্তর্জাতিকভাবে চিহ্নিত এ অপরাধীকে প্রতিনিধি দলে যুক্ত করার মধ্য দিয়ে সরকার প্রমাণ করল তারা তাদের হিংস্র, মানবতা বিরোধী অপতৎপরতা চালিয়েই যাবে বিশ্ব বিবেক ও মতামতকে তোয়াক্কা না করে। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিতি ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, আমীর খসর মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান।