ঢাকা বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১, ২০২৩

Popular bangla online news portal

মাদক বিক্রির প্রতিবাদ করায় প্যানেল মেয়রকে মারধরের অভিযোগ


নিউজ ডেস্ক
৫:৩১ - শনিবার, নভেম্বর ১২, ২০২২
মাদক বিক্রির প্রতিবাদ করায় প্যানেল মেয়রকে মারধরের অভিযোগ

মাদক বিক্রির প্রতিবাদ করায় শেরপুর পৌরসভার ৭, ৮, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র নাজমা বেগমকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে।

পৌর শহরের দিঘারপাড় মহল্লায় এ হামলার ঘটনা শুক্রবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে শহিদুল নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন ধরে শেরপুর পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের দিঘারপাড় এলাকায় টিপু মিয়ার ছেলে রফিজুল ও শহিদুল মাদক বিক্রি করে আসছেন। অবাধে মাদক বিক্রি বন্ধের জন্য প্যানেল মেয়র নাজমা বেগম পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটনকে জানান। মেয়র এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে শেরপুরের পুলিশ সুপারকে অনুরোধ জানান।

বৃহস্পতিবার রাতেই পুলিশ ওই এলাকায় তদন্ত করতে যায়। এতে রফিজুল, শহিদুলসহ তার পরিবারের সবাই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। শুক্রবার সকালে তারা প্যানেল মেয়র নাজমা বেগমের বাড়িতে গিয়ে ওপর হামলা চালায়। তাকে পিটিয়ে জখম করে। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে শেরপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন প্রতিবেশীরা।

আহত নাজমা বেগম বলেন, ‘আমাদের বাড়ির সঙ্গে টিপু মিয়ার বাড়ি। তার ছেলে রফিজুল, শহিদুল ইয়াবার ব্যবসা করে। আমি প্রতিবাদ জানালে তারা সবাই মিলে আমাকে মারধর করে। এতেই তারা ক্ষান্ত হয়নি, এখনো আমাকে হুমকি দিচ্ছে তারা।

এদিকে নারী কাউন্সিলরের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া রোববার দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বছির আহমেদ বাদল বলেন, তারা পরস্পর আত্মীয়। এ ঘটনায় এরই মধ্যে একজনকে আটক করা হয়েছে। অভিযোগ প্রাপ্তি সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে আটক শহিদুল জানিয়েছে, মাদক নয়, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে তাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি হয়েছে।